• সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ১১:০৭ পূর্বাহ্ন
/ মতামত
মো. কামাল হোসেন: বিশ্বায়ন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের দাপটের যুগে বাংলাদেশে সাংবাদিকতাকে বহুমূখী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হচ্ছে। এর অন্যতম হলো, সংবাদ মাধ্যমকে সাধারণ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পরিনত করার প্রবনতা দেশ জুড়ে বিস্তারিত
আশরাফুল আলম খোকন: সব পেশারই কিছু ধর্ম আছে, সম্মান আছে। সমাজের সবচেয়ে নিচু শ্রেণীর মানুষের কোনো পেশার কথা যদি বলেন তারাও তাদের জগতে একটা সম্মান নিয়ে চলে। এখন কোন পেশাকে
রাশিদ রিয়াজ: ১৯৭১ সালের ২০ মার্চ আমার দাদা আতাহার আলী সরকার পাবনার সালগারিয়ায় নিজ বাসভবনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। আতাহার আলী ছিলেন আমার বাবার চাচা। তার ছিলো ৮টি মেয়ে।
উৎপল দত্ত: নারীর উর্বরতা ও বিশ্বাসযোগ্যতা উভয়ই পুরুষতান্ত্রিক সমাজের কাছে অর্থসম্পদ।চিরাচরিত প্যাট্রোলিনাল বা পিতৃতান্ত্রিক সমাজে নারীর  স্বাধীনতার সীমাবদ্ধতা আসলে  সমন্বয়ের ব্যর্থতা। প্যাট্রিলিনাল সমাজে, নারীর কাজ হলো, এমন পুত্র সন্তান উপহার দেয়া 
উৎপল দত্ত: বিশ শতকে পূর্ব এশিয়ার নারী দক্ষিণ এশিয়ার নারীর মতোই নির্যাতিত ছিলো। ব্যক্তি স্বাধীনতা ছিলো না। এরপর একটি পরিবর্তনের রেখা দেখা যায়। বিশ শতকের শুরুতে পূর্ব এশিয়া লিঙ্গ সমতার
আমাদের দেশে প্রায় সব পরিবারের সকলে এক সাথে বেড়াতে যাওয়া অথবা পিকনিক-এ যাওয়া মানেই বিভিন্ন ধরনের খাবারের আয়োজন। অনেক বাড়িতে কোন অতিথি আসবে জানলে এক সপ্তাহ আগ থেকে চলতে থাকে
সোনিয়া আক্তারঃ একজন মানুষ অন্য একজন মানুষকে কেন খুব বাজে ভাবে মানসিক নির্যাতন করে অথবা কিভাবে এমনটা করতে পারে? অথবা এতে তারা কি মজা পান? আমাদের সমাজে অনেকেই এই নির্যাতনের
উৎপল দত্ত: একাত্তরের মার্চ আক্ষরিক অর্থেই ছিল উত্তাল। বিক্ষুব্ধ সমুদ্রের মতো। ‘পাকিস্তান’ খসে পড়ার অল্প মুহূর্তই বাকি – নাটকের শেষ দৃশ্যের মতো। ‘পূর্ব পাকিস্তান’ কার্যত তখন ‘বাংলাদেশ’ । বাংলাদেশের পতাকা
উৎপল দত্ত: আজও ভোরের বাতাসে বাঙালি বুক ভরে অক্সিজেন নেয়। নগরের নগন্য পাখির কিচিমিচির না চাইলেও কানে সেঁধিয়ে যায়। কংক্রিটির সড়কের পাশে গোপনে বেড়ে-ওঠা নাজুক গুল্ম-লতাটি নজর কাড়তে হাতছানি দেয়।
উৎপল দত্ত: মহামারি এখনও আগ্রাসী। তার পথ ধরেই পৃথবীর অস্তিত্ব-বিনাশীএকাধিক ইস্যু সামনে এসেছে। গ্লোবাল ওয়ার্মিং চড়চড় করে বাড়ছে। পরিবেশ বিপন্ন হচ্ছে, জলবায়ুর পরিববর্তন হচ্ছে। উদ্ভাবিত প্রযুক্তির কথা ছিলো তা পৃথিবীর
উৎপল দত্ত: আমরা হ্যমিলিনের বাঁশিঅলা দেখিনি। তার জন্য আমাদের কোন দুঃখ–আক্ষেপ নেই। লেজেন্ডে কথিত, হ্যমিলিনের বাঁশিঅলা মেয়রের ডাকে নগরকে ইঁদুর মুক্ত করেছিল। ভয়ঙ্কর দাঁতাল ইঁদুর মুক্ত করেছিল আমদের বাঁশিঅলা।  শুধু
মস্তিষ্ক দিয়ে অভিনয় করেন জয়া – দর্শক মাতানের জন্য এটাই তার মোক্ষম স্ট্রোক।‘আমি সেরিব্রাল’ অভিনয় করি। ইটাইমস এর সাথে এক সাক্ষাৎকারে বলেন অভিনেত্রী জয়া আহসান। সুপারস্টার এর ট্যাগ নিজের কাঁধে
উৎপল দত্ত: প্যানডেমিক-এ বিশ্বজুড়ে কূটনীতির নতুন কৌশল ভ্যাকসিন। ভ্যাকসিনের ভ্যাপার কূটনৈতিক বাষ্প হয়ে উড়ে যাচ্ছে এক দেশ থেকে অন্য দেশে। কূটনৈতিক খেলার মাঠে টপ স্কোরার এখন করোনা ভ্যাকসিন। কোভিড-১৯ খুলে