• বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ন

এসএসসি উত্তীর্ণদের ছাত্রলীগের শুভেচ্ছা

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : সোমবার, ১৩ মে, ২০২৪

২০২৪ সালের এসএসসি, দাখিল, ভোকেশনাল ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ও অংশগ্রহণকারী সব শিক্ষার্থীকে প্রাণঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

রোববার (১২ মে) ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাদ্দাম হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানো হয়। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজকের ছাত্রসমাজ আগামীর ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করবে বলে বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ অভিমত প্রকাশ করেন।

মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের পাশে সর্বদা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ছিল উল্লেখ করে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘গত ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এই পরীক্ষায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রতিটি সাংগঠনিক ইউনিটের নেতাকর্মীরা পরীক্ষার্থী বন্ধুদের পড়াশোনা, পরীক্ষার পরিবেশ, যাতায়াত ও প্রয়োজনীয় অন্যান্য বিষয়ে সর্বোচ্চ সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিল। একই সঙ্গে পরীক্ষার্থী বন্ধুরা যেন নির্বিঘ্নে, যথাসময়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছাতে পারে তা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও ট্রাফিক বিভাগের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল।’

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘শিক্ষার্থী সমাজের প্রিয় বন্ধু শেখ হাসিনা প্রণীত শিক্ষানীতির আলোকে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ, অবৈতনিক শিক্ষা, শিক্ষা বৃত্তি ও উপবৃত্তি, আধুনিক কারিকুলাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষাব্যবস্থা, গবেষণা সহায়ক উচ্চশিক্ষা, নতুন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, কলেজসমূহের সরকারিকরণ ও এমপিওভুক্তি, বিশেষায়িত জ্ঞানের জন্য উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা, উন্নত আবাসন সুবিধা, সেশনজট শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনা, অস্ত্র-সন্ত্রাস ও বিশৃঙ্খলামুক্ত ক্যাম্পাস প্রভৃতি কর্মকাণ্ড দেশের শিক্ষাখাতে গুণগত পরিবর্তন সাধন করেছে।’

বর্তমান সরকারের আমলে মেধার ভিত্তিতে চাকরির নিয়োগ চলমান রয়েছে উল্লেখ করে বলা হয়, অতীতে নকল, পরীক্ষা কেন্দ্র দখল, প্রশ্নফাঁস ইত্যাদি শিক্ষার্থীদের জীবনে যে অভিশাপ ডেকে এনেছিল, বর্তমানে তা দূর করে শিক্ষার্থীদের জন্য সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পাশাপাশি যথাসময়ে শিক্ষাজীবন সমাপ্ত করে ঘুষ-দুর্নীতি-স্বজনপ্রীতি- প্রশ্নফাঁসমুক্ত স্বয়ংক্রিয় নিয়োগ কাঠামোর মাধ্যমে মেধার ভিত্তিতে সরকারি ও বেসরকারি চাকরিতে প্রবেশের সুবর্ণ সুযোগ তৈরি হয়েছে।

একইভাবে, দেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখতে এবং চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে যেসব উচ্চশিক্ষিত তরুণ উদ্যোক্তা হিসেবে কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করতে চায়, তাদের জন্যও প্রাতিষ্ঠানিক পরিকাঠামো গঠন করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :
এ জাতীয় আরও খবর