• বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৯:৪৬ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশকে পূর্ণ সমর্থনের আশ্বাস সৌদি যুবরাজ সালমানের

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : রবিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
বাংলাদেশকে পূর্ণ সমর্থনের আশ্বাস সৌদি যুবরাজ সালমানের
বাংলাদেশকে পূর্ণ সমর্থনের আশ্বাস সৌদি যুবরাজ সালমানের

বাংলাদেশ ও সৌদি আরব সম্ভাব্য সব ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়াতে একযোগে কাজ করবে বলে জানিয়েছেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকারপ্রধানকে পূর্ণ সমর্থনের আশ্বাসও দেন সৌদি যুবরাজ।

রোববার ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে সৌদির ক্রাউন প্রিন্সের সঙ্গে একটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় বাংলাদেশ সফরের জন্য সৌদির প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানকে আমন্ত্রণ জানান বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। সরকারপ্রধানের এ আমন্ত্রণ গ্রহণ করে বাংলাদেশ সফরের জন্য আগ্রহও প্রকাশ করেছেন সৌদির ক্রাউন প্রিন্স।

বৈঠকে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের পাশাপাশি আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়।

এসময় ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) থিম্যাটিক অ্যাম্বাসেডর এবং অটিজম ও নিউরো ডেভেলপমেন্টাল ডিসঅর্ডার জাতীয় উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারপারসন সায়মা ওয়াজেদ পুতুলও উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, রোববার সকালে নয়া দিল্লিতে জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে সৌদি যুবরাজ ও আমাদের প্রধামন্ত্রীর দ্বিপক্ষীয় বৈঠক খুবই ফলপ্রসু হয়েছে। যুবরাজ সালমান সাম্প্রতিক বছরগুলোয় বাংলাদেশে উল্লেখযোগ্য আর্থসামাজিক উন্নয়নে শেখ হাসিনার নেতৃত্বের বেশ প্রশংসা করেন।

সৌদির যুবরাজ বলেন, বাংলাদেশ ও সৌদি আরব সম্ভাব্য সব ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়ানের জন্য একসঙ্গে কাজ করবে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকারপ্রধানকে পূর্ণ সমর্থনের আশ্বাসও দেন তিনি।তিনি বাংলাদেশের পতেঙ্গা টার্মিনাল, পায়রা বন্দর এবং এসিইউউব্লিউ এ পুনর্নবীকরণযাগ্য জ্বালানি প্রকল্পসহ এ দেশের নানা প্রকল্পে তার নিজ দেশ সৌদি আরবের বিনিয়োগকারীদের চলমান বিনিয়োগ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। যুবরাজ সালমান বলেন, প্রায় ২৮ লাখ বাংলাদেশি কাঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে সৌদির অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে।

এছাড়া ২০৩০ বিশ্বকাপ আয়োজক হিসেবে সৌদি আরবকে সমর্থন করায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদও জানান সৌদি যুবরাজ।

সৌদি যুবরাজ সালমানের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পুতুলও উপস্থিত ছিলেন

জি-২০ জোটের শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে শুক্রবার নয়াদিল্লি যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সফরের প্রথম দিনই ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন শেখ হাসিনা।

রোববার জি-২০ সম্মেলনে ফাঁকে শেখ হাসিনার সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কথা হয়। বাইডেন এসময় প্রধানমন্ত্রী ও তার মেয়ে পুতুলের সঙ্গে সেলফিও তোলেন।

রাতে ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর দেয়া নৈশভোজে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন জো বাইডেন। বঙ্গবন্ধুর ছোট কন্যা শেখ রেহানাও এসময় উপস্থিত ছিলেন। ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও।


আপনার মতামত লিখুন :
এ জাতীয় আরও খবর