• বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ১১:০৩ পূর্বাহ্ন

আল জাজিরা প্রযোজিত দুর্বল চিত্রনাট্য 

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
আল জাজিরা প্রযোজিত দুর্বল চিত্রনাট্য

উৎপল দত্ত: আল জাজিরা প্রযোজিত ডক্যুমেন্টারি ফিল্মের চিত্রনাট্যটি দাঁড়িয়ে আছে বায়বীয় ভাবনার ওপর। গলদ আরও আছে। বিভ্রান্তির ভিড়ও আছে। তা বিশ্লেষণ করে দেখছেন পর্যবেক্ষক মহল।

রাষ্ট্রের প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সাথে ছবি তুলে যে ভবিকে ভোলানো যায় না, তার প্রমাণ এদেশের সরকার ও মানুষ দেখিয়েছে। আল জাজিরার ইনভেস্টিগেশন টিম বাংলাদেশে রিজেন্ট গ্রুপের ঘটনাটি খতিয়ে দেখলে চিত্রনাট্যের গল্প সাজাতে হয়তো অন্য কিছুর তল্লাশি করতো। আরেকটু সতর্ক ও যত্নশীল হতো। কিন্তু রিজেন্ট গ্রুপ বা কোন একজন সাহেদ সম্পর্কে তাদের উৎসাহ নেই। তাদের টার্গেট তো ভিন্ন।

প্রধানমন্ত্রী মিঃ হালুম এর নিরাপত্তার ওপর যদি এতোটাই ভরসা রাখেন, তাহলে ১৯৯৬ -২০০১ মেয়াদকালে তিনি যখন ক্ষমতায় ছিলেন তখন মিঃ হালুম দেশে ফিরে রাষ্ট্রপতির ক্ষমা নিয়ে বহাল তবিয়তে থাকবেন, প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা দেবেন, ক্ষমতা ও প্রতিপত্তির ঘুড়ি ওড়াবেন সেটাই তো হওয়ার কথা ছিলো। বিচার এড়িয়ে দেশান্তরী হয়ে থাকার কথা নয় তার।

পরিবারের ছোট ভাই ধরা যাক তার নাম জসিম। আল জাজিরার বয়ান অনুসারে এই ভাই খুনের দায়ে ২০১৮ সাল পর্যন্ত জেল খেটেছে। ২০১৮ সালের শেষের দিকে রাষ্ট্রপতির ক্ষমায় সে মুক্তি পায়। প্রশ্ন ওঠে, পরিবারটি যদি এতোই প্রভাবশালী হয়, তাহলে ২০০৫ থেকে ২০১৮ সালের শেষ পর্যন্ত ২৩ বছর তাকে জেলে থাকতে হয় কেন! আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে ১৪ বছর। কাহিনিসূত্র মিলছে না।

সেনাবাহিনী প্রধানের পদের জন্য প্রধানমন্ত্রী একজন দক্ষ জেনারেলকে খুঁজছিলেন। তার পছন্দের তালিকায় একাধিক নাম বা বিকল্প ছিলো। তথ্যটি পাশ কাটিয়ে গেছে আল জাজিরা।

আল জাজিরার ডক্যুফিকশনটি দেখার পর মনে হয়, কাহিনি ও চিত্রনাট্য তারা যেমন করে সাজিয়েছে তাতে নামকরণ ‘অল দ্য জেনারেল’স’ মেনও তারা করতে পারতো। জেনারেল ও তার ভাইদের কাহিনির বয়ান দিয়ে হঠাৎ সুর পাল্টে নামকরণ হলো, ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার’স মেন’। এক ঢিলে দুই পাখি মারা। সেনাবাহিনীর ভাবমূর্তির ওপর আঘাত করার পর ডক্যুফিকশনের টাইটেল ভিন্ন হওয়ায় স্পষ্ট হয়, আল জাজিরার টার্গেট আসলে প্রধানমন্ত্রী। আর তার জন্য যে সব যোগসূত্রহীন পরস্পর বিরোধী উপকাহিনি নির্মাণ করা হয়েছে তাও বিশ্বাসযোগ্যতা হারিয়েছে।

এমন একটি শক্তিশালী ইনভেস্টিগেশন টিমের কাহিনি নির্মাণ কতো অপটু। দর্শক-শ্রোতাদের চাহিদা মেটাতে ব্যর্থ। ফ্লপের কারণ দুর্বল চিত্রনাট্য। আর মিথ্যাকে আশ্রয় করে যে কাহিনি গড়ে ওঠে তা দুর্বল হতে বাধ্য। সহায়ক তথ্যসূত্র: ঢাকা ট্রিবিউন

পর্ব-০২


আপনার মতামত লিখুন :
এ জাতীয় আরও খবর