এই দিন

রোববার   ০৫ জুলাই ২০২০   আষাঢ় ২০ ১৪২৭   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beta Version
সর্বশেষ:
১৪ জুলাই বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনে ভোট ভুডুড়ে বিদ্যুৎ বিল: ডিপিডিসির ৪ প্রকৌশলী বরখাস্ত, শোকজ ৩৬ বিমানের অধিকাংশ আন্তর্জাতিক ফ্লাইট স্থগিত করোনায় মৃত্যু শীর্ষে ঢাকা, সবচেয়ে কম ময়মনসিংহে ওয়ানডেতে শতাব্দীর দ্বিতীয় সেরা ক্রিকেটার সাকিব, ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর শুভেচ্ছা আবার করোনা পজিটিভ মাশরাফির গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু ২৯, শনাক্ত ৩২৮৮ ঈদের আগেই সব শ্রমিকের বেতন-ভাতা পরিশোধের আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ১৪ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা সাবেক মন্ত্রী টি এম গিয়াস উদ্দিন আর নেই
৩৬

বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা লাখ ছাড়িয়ে কোটিতে 

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৭ জুন ২০২০  

বিশ্বজুড়ে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৯ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। আন্তর্জাতিক জরিপকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার এ তথ্য জানিয়েছে।

সংস্থাটির তথ্যানুযায়ী, বিশ্বে বর্তমানে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯৯ লাখ ৩১ হাজার ৫১৯ জন। এর মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ৪ লাখ ৯৭ হাজার ৫০৬ জন। এছাড়া সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫৩ লাখ ৭৯ হাজার ৮৭৪ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। এ পর্যন্ত বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাসটি।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যমতে, এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ লাখ ৫৩ হাজার ৬৮ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ২৭ হাজার ৬৪০ জনের। আক্রান্তের হিসাবে দ্বিতীয় স্থানে জায়গা করে নিয়েছে ব্রাজিল। দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১২ লাখ ৮০ হাজার ৫৪ জনে দাঁড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৫৬ হাজার ১০৯ জনের। তৃতীয় স্থানে থাকা রাশিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে ৬ লাখ ২৭ হাজার ৬৪৬ জন। প্রাণ হারিয়েছে ৮ হাজার ৯৬৯ জন।

এছাড়া চতুর্থ স্থানে উঠে আসা ভারতে করোনায় ৫ লাখ ১০ হাজার ৬৭২ জন আক্রান্ত ও ১৫ হাজার ৭১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। পঞ্চম স্থানে থাকা যুক্তরাজ্যে ৩ লাখ ৯ হাজার ৩৬০ জন আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে প্রাণ হারিয়েছে ৪৩ হাজার ৪১৪ জন।

করোনার উৎপত্তিস্থল চীনে ৮৩ হাজার ৪৮৩ জন এতে আক্রান্ত হয়েছেন। প্রাণ হারিয়েছেন চার হাজার ৬৩৪। দেশটিতে করোনার সংক্রমণ থমকে গেলেও সম্প্রতি ফের আক্রান্তের ঘটনা ঘটছে।

এদিকে করোনা মহামারির ফলে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে রয়েছে আফ্রিকাসহ বেশ কিছু স্বল্পোন্নত দেশ। বিভিন্ন দেশে লকডাউন ও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ফলে ত্রাণ কার্যক্রম ব্যাহত হওয়ায় এ শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২০০৭-০৮ সালের দিকে খাবারের দাম বেড়ে যাওয়ায় বিশ্বজুড়ে যে ধরনের সহিংস পরিস্থিতি দেখা গিয়েছিল তার পুনরাবৃত্তি হতে পারে। বিশ্ব চাইলে আসন্ন এ সংকট ঠেকাতে পারে, তবে তা করার সময় ফুরিয়ে আসছে। খুব দ্রুতই সম্মিলিতভাবে ব্যবস্থা নিতে হবে।

   এই দিন
এই বিভাগের আরো খবর