এই দিন

শনিবার   ০৪ জুলাই ২০২০   আষাঢ় ২০ ১৪২৭   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beta Version
সর্বশেষ:
১৪ জুলাই বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনে ভোট ভুডুড়ে বিদ্যুৎ বিল: ডিপিডিসির ৪ প্রকৌশলী বরখাস্ত, শোকজ ৩৬ বিমানের অধিকাংশ আন্তর্জাতিক ফ্লাইট স্থগিত করোনায় মৃত্যু শীর্ষে ঢাকা, সবচেয়ে কম ময়মনসিংহে ওয়ানডেতে শতাব্দীর দ্বিতীয় সেরা ক্রিকেটার সাকিব, ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর শুভেচ্ছা আবার করোনা পজিটিভ মাশরাফির গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু ২৯, শনাক্ত ৩২৮৮ ঈদের আগেই সব শ্রমিকের বেতন-ভাতা পরিশোধের আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ১৪ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা সাবেক মন্ত্রী টি এম গিয়াস উদ্দিন আর নেই
৪০

দেশের উন্নয়নের প্রধান বাধা কালচার: পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশিত: ২৫ জুন ২০২০  

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, ‘আমাদের চলায়, বলায়, কথায়, আচরণে, বিশ্বাসে প্রতিটি ক্ষেত্রে পরাধীনতার থাবা একেবারে গেড়ে আছে। অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রেও নানা ধরনের বাধা রয়েছে। এমনকি লকডাউন জনগণের কল্যাণে ব্যবহার করতে গিয়েও আমরা অনেকগুলো অসুবিধার সম্মুখীন হয়েছি। এসব মোকাবিলা করেই রাজনীতি করতে হবে। উন্নয়নও করতে হবে। আমি মনে করি, উন্নয়নের প্রধান বাধা আমাদের কালচার। প্রচুর নেতিবাচক আবহাওয়া এখানে আছে।’

বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) বিকেলে সমুদ্র সংরক্ষণ বিষয়ক সংগঠন সেভ আওয়ার সি আয়োজিত ‘বাজেট অন ব্লু ইকোনমি’ শীর্ষক এক অনলাইন আলোচনা অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। সরকার ২০৪১ সালকে উন্নত দেশ হিসেবে গড়ার লক্ষ্য নিয়েছে। আমরা সবাই সেই লক্ষ্যে কাজ করছি। সেই লক্ষ্যে যদি আমরা যেতে চাই, আমাদের অপার সমুদ্র সম্ভাবনার যে জায়গা, আমরা যে সমুদ্র পেয়েছি, সেটাকে কাজে লাগাতে হবে। ২০ কিলোমিটার গেলে হবে না। ২০ কিলোমিটার পরে যে আরও ২০০ কিলোমিটারে কি আছে না আছে, সবাইকে সম্মিলিতভাবে সেগুলোকে কাজে লাগাতে হবে।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘পশ্চিম দিকে তাকিয়ে বড় হয়েছে সবাই। তাই পূর্ব দিকে তাকানো বা দক্ষিণ দিকে তাকানো কিংবা আমাদের ঘরের কাছে যে সম্পদ, বাড়ির কাছে আরশিনগর, সেটা কিন্তু আমরা অবহেলা করেছি। এই যে বিশাল বঙ্গোপসাগর, বিশাল সম্পদ। আর আমাদের বের হওয়ার পথ খুব সীমিত। আমাদের ভূমির তিন দিকে আছে ভারত ও মিয়ানমার। কিন্তু বের হওয়ার পথ উদার হলো দক্ষিণ দিকে বা সাগরের দিকে। শুধু বের হওয়ার জন্য নয়, আহরণের জন্য অর্থনৈতিকভাবে চমৎকার একটা সুযোগ আছে বলে জ্ঞানী ব্যক্তিরা বলেন।’

তিনি বলেন, ‘এখানে শুধু সমুদ্র নয়, এখানে পাথর আছে, উপকূল আছে, বন আছে, পেছনে পাহাড় আছে। গ্যাস, এনার্জি, মাছ– কী নেই এখানে? ব্লু ইকোনমির বিশাল একটা সম্ভাবনা আছে। এটা কাজে লাগানোর জন্য সবদিকে আমাদের মনপ্রাণ খুলতে হবে। আমরা পশ্চিমের দিকে তাকাবো, পাশাপাশি দক্ষিণে পূর্বেও ভারসাম্য করে তাকাতে হবে।’

   এই দিন
এই বিভাগের আরো খবর