এই দিন

রোববার   ০৫ জুলাই ২০২০   আষাঢ় ২০ ১৪২৭   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beta Version
সর্বশেষ:
১৪ জুলাই বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনে ভোট ভুডুড়ে বিদ্যুৎ বিল: ডিপিডিসির ৪ প্রকৌশলী বরখাস্ত, শোকজ ৩৬ বিমানের অধিকাংশ আন্তর্জাতিক ফ্লাইট স্থগিত করোনায় মৃত্যু শীর্ষে ঢাকা, সবচেয়ে কম ময়মনসিংহে ওয়ানডেতে শতাব্দীর দ্বিতীয় সেরা ক্রিকেটার সাকিব, ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর শুভেচ্ছা আবার করোনা পজিটিভ মাশরাফির গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু ২৯, শনাক্ত ৩২৮৮ ঈদের আগেই সব শ্রমিকের বেতন-ভাতা পরিশোধের আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ১৪ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা সাবেক মন্ত্রী টি এম গিয়াস উদ্দিন আর নেই
১৮

দুই সাংবাদিকের নামে ডিজিটাল আইনে মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৮ জুন ২০২০  

হবিগঞ্জে দুই সাংবাদিককে জড়িয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বানিয়াচং উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলমের দায়ের করা মামলার প্রতিবাদে আন্দোলন শুরু হয়েছে। আন্দোলনের অংশ হিসেবে শনিবার (২৭ জুন) দুপুরে 'টিভি জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন, হবিগঞ্জ' এই ব্যানারে জেলা প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন আখ্যায়িত করে দ্রুত মামলাটি প্রত্যাহারের দাবি জানান সর্বস্তরের সাংবাদিকরা। তা না করা হলে বড় ধরনের আন্দোলন গড়ে তোলার হুঁশিয়ারি দেন তারা। 

জেলা প্রেসক্লাব ও সাংবাদিক ফোরামসহ বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন এতে অংশ নেয়। এ সময় প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার দুই শতাধিক সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা বলেন, সুনির্দিষ্ট তথ্য ও সংবাদ নীতিমালা মেনে মৎস্য কর্মকর্তা আলমের দুর্নীতি সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে বিভিন্ন পত্রিকায়। অথচ হবিগঞ্জের দু’জন সংবাদিককে জড়িয়ে হয়রানির উদ্দেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বিতর্কিত মামলা দায়ের করেছেন ওই কর্মকর্তা। এই মামলা মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। দ্রুত প্রত্যাহার করা না হলে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিও জানান তারা।

পরবর্তী আন্দোলনের ঘোষণার আশ্বাস দিয়ে সব সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ থেকে এই হয়রানিমূলক মামলার প্রতিবাদ জানান জেলা প্রেসক্লাব সভাপতি। বক্তব্যে হবিগঞ্জ টিভি জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি বলেন, 'সত্য সংবাদ প্রকাশের পরও মৎস্য কর্মকর্তা ডিজিটাল আইনে মামলা দায়ের করেছেন। শিগগিরই এই মামলা তুলে না নিলে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।'

উল্লেখ্য, বানিয়াচং উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলম এক কর্মস্থলে টানা দীর্ঘদিন চাকরির সুবাদে বিভিন্ন দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়ে গেছেন, এমন অভিযোগ এনে এবং প্রতিকার চেয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে স্থানীয় লোকজন। এ নিয়ে বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। পরে হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে কয়েকজন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদন করেন আলম। কিন্তু এখতিয়ার বহির্ভূত হওয়ায় মামলাটি খারিজ করে দেন আদালত। পরে তিনি ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন। এতে আসামি করা হয়, মাছরাঙা টেলিভিশনের হবিগঞ্জ প্রতিনিধি চৌধুরী মো. মাসুদ আলী ফরহাদ ও বাংলা নিউজের ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট বদরুল আলমসহ আরও কয়েকজনকে।

   এই দিন
এই বিভাগের আরো খবর