এই দিন

মঙ্গলবার   ২৭ অক্টোবর ২০২০   কার্তিক ১১ ১৪২৭   ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

Beta Version
   এই দিন
সর্বশেষ:
রিফাত হত্যা মামলা: অপ্রাপ্তবয়স্ক ১১ আসামির সাজা কাউন্সিলর পদ হারাচ্ছেন ইরফান সেলিম বরগুনার আদালত প্রাঙ্গণে এখন শুধু রায়ের অপেক্ষা
২৬৮

দক্ষিণ পাহাড়তলিতে ভূমি দস্যু শামসূলের জমি দখলের চেষ্টা 

প্রকাশিত: ১৭ অক্টোবর ২০২০  

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ১নং দক্ষিণ পাহাড়তলি ওয়ার্ডে বে-আইনি ভাবে অন্যের জায়গা দখল চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে খিল্লাপাড়ার শামশুল আলম প্রকাশ শামসূ কোম্পানীর বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যে জংগল দক্ষিণ পাহাড়তলিতে অনেক সরকারি জায়গা বিভিন্ন কৌশলে ভূমি দস্যুরা দখলে নিয়েছে। কেউ নিজের একটুখানি জায়গার সাথে মিলিয়ে কিংবা পাহাড়ের আড়ালে এ ঝোপ জংগল এলাকায় সরকারি জায়গায় ফলের বাগান বানিয়ে নিজেরাই জমিদার সেজে মহাজনি করছেন এদের অন্যতম হোতা শামশু গং।

শামশু গং কানন সোসাইটিতে নিজেদের জায়গা জমি সব বিক্রি করে এখন নিজেদের পুরাতন খতিয়ানের কথা বলে অনেক আগে বিক্রি হয়ে যাওয়া জমি নিজেদের দাবী করে সাধারণ জনগণের জায়গা দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

নানা ভাবে মামলা, হয়রানি করা বর্তমানে তার পেশা ও নেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে। যখন যারা ক্ষমতায় থাকে তাদের নাম ভাংগিয়ে এসব অপকর্ম চালিয়ে যান তিনি।

বর্তমানে সে চিকনদন্ডি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান লিয়াকত আলীর জংগল দক্ষিণ পাহাড়তলীর একটি জায়গায় জোরপূর্বক কলা বাগান করেছেন। সে কানন সোসাইটি সংলগ্ন আরেকটি জায়গা যার দলিল ও খতিয়ানমূলে রয়েছেন লিয়াকত আলী চেয়াম্যান এবং পাওয়ার দলিলে রয়েছেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সাবেক ইমাম ও খতিব মাওলানা এ কে এম ফারুক সিদ্দিকী। এটিও দখলের পায়তারা করে যাচ্ছেন তিনি। 

এই জায়গাটি বিগত ১৯৮৪ সাল থেকে মাওলানা ফারুক সিদ্দিকীর মলিকানায় চাষবাস ও দখলে রয়েছে এবং তাদের নামেই ১৪১৮ নং বিএস নামজারী খতিয়ান চুড়ান্ত হয়ে ৩৪৩৮,৩৪৪৮, ৩৪৩৭ দাগের শামিল হয়ে, সরকারী খাজনাপাতি দিয়ে এই সাড়ে দশ গন্ডা জমিতে ভোগ দখলে আছেন।

ইতিমধ্যে খিল্লাপাড়ার শামসূ গং তার সন্ত্রাসী লোকজন দিয়ে নানা রকম হুমকি ধমকি দিচ্ছে এবং জায়গার প্রকৃত মালিকদের উচ্ছেদ ও প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এর আগে মাওলানা এ কে এম ফারুক সিদ্দিকী এদের বিরুদ্ধে এডি এম কোর্টে ১৪৫ ধারায় একটি মামলাও রুজু করেন। 

কোর্টের নির্দেশের প্রেক্ষিতে হাটহাজারী থানা কর্তৃপক্ষ পকৃত মালিক লিয়াকত আলী ও মাওলানা একেএম ফরুক সিদ্দিকীদের পক্ষে দখল প্রতিবেদন দেন। এমনকি জায়গায় তারা যে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করেন তাও উল্লেখ করেন।

বে-আইনী ভাবে আরেকজনের জায়গা দখলের জন্য শামসু কোম্পানীর শাস্তি দাবি করেছেন ভুক্তভোগীরা। একই সঙ্গে এই হয়রানি থেকে প্রতিকার চেয়ে প্রশাসনের কাছে সহায়তা কামনা করেছেন তারা। এনিয়ে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।
 

   এই দিন
এই বিভাগের আরো খবর