এই দিন

বৃহস্পতিবার   ২৯ অক্টোবর ২০২০   কার্তিক ১৪ ১৪২৭   ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

Beta Version
   এই দিন
সর্বশেষ:
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আরও বাড়ল স্বাধীনতা পুরস্কার প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী
১৬৫

গ্যাস্ট্রিকে আক্রান্তের কারণ এবং রক্ষার উপায়

পুষ্টিবিদ আমিনা শাহনাজ হাশমি

প্রকাশিত: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০  

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় অনেকেই ভোগেন। তবে কেন হয় এবং এর থেকে পরিত্রাণের উপায় কী এই নিয়ে আজ আমাদের আলোচনা।

গ্যাস্ট্রিক সমস্যা বলতে আমরা বুঝি যে খাওয়ার আগে বা পরে অনেকেরই বুক জ্বালাপোড়া করে, পেট ব্যথা করে অনেকক্ষণ না খেয়ে থাকার ফলে পেট ব্যথা করে, আবার অনেকে খাওয়ার পর পর বমি বমি লাগে বা পেটের শব্দ করে ,এছাড়াও খাবারে ভেজাল এর কারণে ছোট-বড় সব বয়সেই গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দেখা যায়। এটি মূলত পরিপাকতন্ত্রের ব্যাঘাত জনিত একটি উপসর্গ আসুন দেখে নেয়া যাক কারণ গুলো:

  •  আমাদের দেশের মানুষ বেশি মসলাযুক্ত খাবার পছন্দ করেন বেশি মসলাযুক্ত খাবার খেলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হয়।
  • বেশিক্ষণ খালি পেটে থাকার ফলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হয়।
  • নিয়মমতো খাবার গ্রহণ না করলে গ্যাসট্রিকের সমস্যা হতে পারে।
  • অনেক তেল ও চর্বিযুক্ত খাবার খেলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হয়।
  • ধূমপান করলে হজম শক্তি কমে যায় ফলে গ্যাসট্রিকের সমস্যা হতে পারে।
  • রাতের খাবার খেয়ে সাথে সাথে ঘুমিয়ে পড়লে গ্যাসট্রিকের সমস্যা হতে পারে।
  • অনেক সময় ব্যথানাশক ওষুধ গ্রহণ করার ফলে গ্যাসট্রিকের সমস্যা হতে পারে।
  • সকালে খালি পেটে চা বা কফি অথবা এসিড জাতীয় ফল খেলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দেখা।
  • ডায়াবেটিস রোগী যাদের হজম শক্তি কম তারা ভারী খাবার গ্রহণ করলে গ্যাসট্রিকের সমস্যা হতে পারে।
  • আবার পরিমাণের তুলনায় কম পানি গ্রহণ করলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • ঘুমের ব্যাঘাত হলে আমাদের কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দেয় এর ফলে ও গ্যাসট্রিকের সমস্যা হতে পারে।
  • লিভার ফাংশন এর কোন রকম গোলযোগ দেখা দিলে গ্যাস্ট্রিক হতে পারে।
  • এছাড়া মানসিক অশান্তি ও টেনশন থেকেও গ্যাস্ট্রিকের দেখা দেয়।


প্রতিকার:

  • নিয়মমাফিক জীবনযাপন করুন প্রতিদিন নিয়ম করে নির্দিষ্ট সময় হাঁটাচলা করুন ও ব্যায়াম করুন এতে পেটে গ্যাস জমবে না।
  • দই অথবা টক দই বা গ্রহণ করুন আছে প্রোবায়োটিক উপাদান যা হজম শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে ও গ্যাস কমিয়ে রাখে।
  • বিভিন্ন খাদ্য উপাদান যেমন শসা, আদা, লবঙ্গ ইত্যাদি খেলে পেটে গ্যাস তৈরি হয় না।
  • যারা ধূমপান করেন তারা ধূমপান থেকে বিরত থাকুন গ্যাস তৈরি হবে না।
  • নির্দিষ্ট সময় পর পর অল্প অল্প করে খাবার গ্রহণ করুন ও পানি পান করুন তবে গ্যাস তৈরি হবে না।
  • তেল চর্বি ও মসলাযুক্ত খাবার গ্রহণ থেকে বিরত থাকুন তবে গ্যাসের সমস্যা হবে না।
  • পর্যাপ্ত ঘুম করুন তবে হজমে ব্যাঘাত হবে না ও গ্যাসীয় সমস্যা দেখা দেবে না।
  •  নিজেকে প্রফুল্ল রাখুন ও হাসিখুশি রাখুন তবেই ভালো থাকবেন মানসিক প্রশান্তি শারীরিক প্রশান্তি।

     

   এই দিন
এই বিভাগের আরো খবর